সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ০২:১০ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ:
ফুলবাড়ীতে কঠোর লকডাউন কার্যকরে কঠোর প্রশাসন ফুলবাড়ীতে তরুণদের উদ্যোগে বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা চালু কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে ৫শ দুস্থ্য পরিবার পেল ঈদ উপহার লালমনিরহাট পৌরবাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, জনতার মেয়র রেজাউল করিম স্বপন ফুলবাড়ীতে কেটে নেয়া ধান গাছ থেকে ফের ধান উৎপাদন পঞ্চগড়ে নদী ভাঙ্গন রক্ষার দাবিতে স্থানীয়দের মানববন্ধন  জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টা; সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীরা ফুলবাড়ীতে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ সচ্ছলরা পেয়েছেন গৃহহীনদের ঘর, প্রতিবাদে কুড়িগ্রামে মানববন্ধন উলিপুরে ১০ ছাত্রলীগ নেতার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার

রংপুর সদর উপজেলায় ইউপি নির্বাচনে সাবেকরাই জয়ী

হীমেল মিত্র অপু, স্টাফ রিপোর্টার
  • Update Time : বুধবার, ২১ অক্টোবর, ২০২০

রংপুর সদরের হরিদেবপুর ও সদ্যপুষ্কুরিণী ইউনিয়ন পরিষদের সাধারণ নির্বাচনে জিতেছে ঢোল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। আর চন্দনপাট ইউনিয়নে নৌকার মান বাঁচিয়েছে সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আমিনুর রহমান।

বেসরকারিভাবে ঘোষিত ফলাফলে তিন ইউনিয়ন পরিষদেই চেয়ারম্যান পদে সাবেকরাই আবার নির্বাচিত হয়েছেন। তিনটি ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা নিটকতম প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে ব্যালেট যুদ্ধে এগিয়ে থাকলেও একটিতেও জিততে পারেননি।

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) রাত এগারোটায় উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ রেজাউল করিম এ ফলাফল ঘোষণা করেন। এসব ইউনিয়নে মোট ভোটারের ৮০ ভাগ ভোট পড়েছে।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা কর্তৃক ঘোষিত ফলাফলে হরিদেবপুর ইউনিয়নে সাবেক চেয়ারম্যান ঢোল প্রতীকে নির্বাচনে অংশ নেয়া স্বতন্ত্র প্রার্থী ইকবাল হোসেন ১১ হাজার ৭৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির প্রার্থী মফিজুল ইসলাম জর্দার লাঙ্গল প্রতীকে ৫ হাজার ৭৯৬ ভোট পড়েছে।

আওয়ামী লীগের নৌকা মার্কায় একরামুল হক পেয়েছেন ৪ হাজার ১৯১ ভোট। এছাড়াও হাতপাখা ৩৮১ ও অটোরিক্সা প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছে ৫১ ভোট। এই ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ২৭ হাজার ২’শ ৯৭ জন। এরমধ্যে ৮০ দশমিক ৬২ ভাগ ভোটার তাদের ভোট প্রদান করেছেন।

সদ্যপুষ্করিনী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোহাম্মদ মকছেদুর রহমান দুলুর নৌকা ডুবিয়ে জিতেছে সাবেক চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী সোহেল রানা। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে তিনি পেয়েছেন ৬ হাজার ৫৬০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির ফজলুল হক ফুলবাবু লাঙ্গল প্রতীকে ৬ হাজার ১২৭ ভোট এবং আওয়ামী লীগের প্রার্থী মকছেদুর রহমান দুলু ৫ হাজার ৫২৬ ভোট পেয়েছেন। এছাড়া রজনীগন্ধা প্রতীকে ৪ হাজার ১৬২ এবং হাতপাখা ৮৭১ ভোট পেয়েছেন। এখানে ২৯ হাজার ৪’শ ১১ জন ভোটারের মধ্যে ৮০ দশমিক ৮৭ ভাগ ভোটার ভোট দিয়েছেন।

চন্দনপাট ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান নৌকা প্রতীকে ৫ হাজার ৬০৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির রুহুল আমিন লিটন লাঙ্গল প্রতীকে পেয়েছেন ৫ হাজার ৩৭৮ ভোট। তার নিকটতম আরেক প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী লিটন চৌধুরী মোটরসাইকেল নিয়ে ভোট পেয়েছে ৪ হাজার ৯৯৩ ভোট। এছাড়া আনারস প্রতীকে ১ হাজার ৩৩২ ভোট, হাতপাখায় ১ হাজার ১৮৯ এবং ধানের শীষে ভোট পড়েছে ১ হাজার ৫৭ ভোট। এই ইউনিয়নে ২৪ হাজার ৮’শ ৫৩ জন ভোটারের মধ্যে ৮০ ভাগ ভোটার ভোটাধিকার প্রদান করেছেন।

তিনটি ইউনিয়নের প্রচার প্রচারণায় জাতীয় পার্টির প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকরা সবসময় সরগরম থাকলেও ব্যালেট পেপারের অংকে ভরাডুবি হয়ে দলটির চেয়ারম্যান প্রার্থীদের। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থীরা হাতপাখা নিয়ে ভোটের মাঠে থাকলেও সুবিধা করতে পারেনি। তাদের ভোটের হিসেব আরো শোচনীয়। তবে ব্যালেট পেপারে নির্বাচন হওয়ায় ভোট উৎসবে মেতেছিল ভোটারগণ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikjonokotha.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com