সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ০১:১২ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ:
ফুলবাড়ীতে কঠোর লকডাউন কার্যকরে কঠোর প্রশাসন ফুলবাড়ীতে তরুণদের উদ্যোগে বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা চালু কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে ৫শ দুস্থ্য পরিবার পেল ঈদ উপহার লালমনিরহাট পৌরবাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, জনতার মেয়র রেজাউল করিম স্বপন ফুলবাড়ীতে কেটে নেয়া ধান গাছ থেকে ফের ধান উৎপাদন পঞ্চগড়ে নদী ভাঙ্গন রক্ষার দাবিতে স্থানীয়দের মানববন্ধন  জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টা; সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীরা ফুলবাড়ীতে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ সচ্ছলরা পেয়েছেন গৃহহীনদের ঘর, প্রতিবাদে কুড়িগ্রামে মানববন্ধন উলিপুরে ১০ ছাত্রলীগ নেতার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার

পহেলা নভেম্বর থেকে পর্যটকদের জন্য খুলছে সুন্দরবন

ডেস্ক রিপোর্ট
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২০
ফাইল ছবি

দেশব্যাপী করোনা পরিস্থিতির কারণে সাত মাস বন্ধ থাকার পর ওয়ার্ল্ড হ্যারিটেজ সাইট (বিশ্ব ঐতিহ্য এলাকা) সুন্দরবনে সব ধরনের প্রকিবেশ পর্যটন বা ইকো ট্যুরিজমের উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছে। আগামী ১ নভেম্বর থেকেই সুন্দরবনে দেশী-বিদেশী পর্যটকরা প্রবেশ করতে পারবেন। মঙ্গলবার বন মন্ত্রণালয়ে বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

প্রধান বন সংরক্ষক (সিসিএফ) মো. আমির হোসাইন চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, দেশব্যাপী করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে গত ১৯ মার্চ পুরো সুন্দরবনে পর্যটকদের যাতায়াত ও নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে বন মন্ত্রণালয়। ওই নির্দেশে বলা হয় পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত গোটা সুন্দরবন জুড়ে এ নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে বলে জানানো হয়। বর্তমানে দেশে করোনা পরিস্থিতি স্বভাবিক হওয়ায় মঙ্গলবার (২৭ আক্টোবর) বন মন্ত্রণালয়ে বৈঠকে সুন্দরবনে সব ধরনের পর্যটন বা ইকো ট্যুরিজমের উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছে। এই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে আগামী ১ নভেম্বর থেকেই করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে সুন্দরবনে দেশী-বিদেশী পর্যটকরা প্রবেশ করতে পারবেন। তবে, ১ নভেম্বর থেকে সুন্দরবনে কোন ট্যুর অপারেটরা তাদের লঞ্চে একসাথে সর্বোচ্চ ৫০ জনের বেশি পর্যটক বহন করতে পারবেন না। একই সাথে সুন্দরবন বিভাগের পূর্বের সব নির্দেশনা মানতে হবে পর্যটক ও ট্যুর অপারেটরদের।

ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব সুন্দরবনের সভাপতি মো. মইনুল ইসলাম জমাদ্দার বন মন্ত্রণালয়ের এই সিদ্দান্তকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, গত ১৯ মার্চ পুরো সুন্দরবনে পর্যটকদের যাতায়াত ও নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণার পর সুন্দরবন কেন্দ্রীক ৭০টি ট্যুর  অপারেটর কোম্পানির অর্ধশত লঞ্চ ও জাহাজের কয়েক হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রায় সাত মাস ধরে বেকার হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করেছে। চরম আর্থিক সংকটে ছিলো তারা। মাত্র তিন থেকে চার মাস সুন্দরবনের পর্যটন মৌসুম। এরপর সারা বছর বসে বসে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সেই টাকায় চলতে হয়। সুন্দরবনের ৯টি পর্যটন এলাকায় পর্যটন মৌসুমে (নভেম্বর থেকে মার্চে) হাজার হাজার মানুষ ঘুরতে আসেন। করোনার কারনে পর্যটন বন্ধ থাকলে সুন্দরবন কেন্দ্রিক পর্যটন শিল্পে ধস নামে। আগামী ১ নভেম্বর থেকেই সুন্দরবনে দেশী-বিদেশী পর্যটকরা প্রবেশ করতে দেয়ায় বন মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত আমাদের বাঁচিয়ে দিয়েছে। এখন আমরা ১ নভেম্বর থেকে করোনা স্বাস্থ্যবিধি মানাসহ সুন্দরবনে বন বিভাগের পূর্বের সব নির্দেশনা মানতে হবে দেশী-বিদেশী সব পর্যটকসহ আমরা কঠোর ভাবে মেনে চলবো।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikjonokotha.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com