বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০৫:২৬ পূর্বাহ্ন

উলিপুরে সন্ত্রাসী কর্তৃক মারপিটের ঘটনায় অর্থাভাবে পঙ্গুত্ব বরন করছে শুনিল চন্দ্র

কু‌ড়িগ্রাম প্রতি‌নি‌ধি
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২০

কুড়িগ্রামের উলিপুরের দক্ষিন মধুপুর গ্রামে সন্ত্রাসী কর্তৃক মারপিটের শিকার শুনিল চন্দ্র বর্মন কোমর ও পায়ে মারাত্মক আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ায় উলিপুর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ উন্নত চিকিৎসার জন্য রেফার্ড করলেও অর্থাভাবে বাহিরে উন্নত চিকিৎসা না নিয়ে উলিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেই চিকিৎসাধীন রয়েছে। হামলার ঘটনায় শুনিলের কোমর ও পা মারাত্মক আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ায় তার উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা যায় । বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু সমাজ সংস্কার সমিতির উলিপুর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক চন্দন সরকার নিরীহ অসহায় শুনিল চন্দ্র বর্মন ও তার স্ত্রীর উপড় হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

সরেজমিন ঘটনার বিবরন ও শুনিল চন্দ্র বর্মনের স্ত্রী ছবিতা রানীর লিখিত এজাহার থেকে জানা যায়,উলিপুর ধরনীবাড়ি ইউনিয়নের দক্ষিন মধুপুর গ্রামের শুনিল চন্দ্র বর্মন গত ১৭-১১-২০২০ইং মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আট ঘটিকার সময় ধামশ্রেণী ইউনিয়ন যাদুপোদ্দার এলাকার জনৈক নিরাশার দোকানে চা পান করে পায়ে হেটে বাড়ী ফেরার পথে শামীমের বৈদ্যুতিক গুদামের সামনের পাকা রাস্তায় পৌছুলে ওৎ পেতে থাকা একই এলাকার মৃত হায়গত আলীর পুত্র মোঃ জাহিদুল ইসলাম রাজু (৪০)ও মৃত গফুর উদ্দীনের পুত্র মোঃ রফিকুল ইসলাম(৪৬) সহ অজ্ঞাত বেশ কয়েকজন যুবক হাতে লাঠি ছোরা রড নিয়ে তার পথ রোধ করে এবং কোমর হইতে পা পর্যন্ত বেধড়ক মারপিট করে। স্বামীকে উদ্ধার করতে আসলে শুনিল চন্দ্রের স্ত্রী ছবিতা রানী তাদের হাতে লাঞ্চিত ও মারপিটের শিকার হন বলে উলিপুর থানায় লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেছেন। পরে স্থানীয়রা তাদের দুই স্বামী- স্ত্রী কে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উলিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠিয়ে দেন।

আহত শুনিল চন্দ্র বর্মন কে গুরতর অবস্থায় উলিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্ববরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য রেফার্ড করলেও তারা অর্থনৈতিক অভাবের কারনে রিক্স বন্ড দিয়ে উলিপুর হাসপাতালেই চিকিৎসা করছেন বলে পরিবার থেকে জানানো হয়। আহত শুনিল চন্দ্র বর্মনের বাম পায়ের হাড় ফেটে গেছে এবং ব্যাথায় কোমর থেকে পা পর্যন্ত নড়াচড়া করতে পারছেন না বলে পরিবার থেকে জানানো হয়েছে।

এ ঘটনায় প্রাথমিক তদন্তে উলিপুর থানার এস আই মামুন, এএসআই সন্চয় দে ও ধরনীবাড়ির বিট পুলিশ অফিসার এ এস আই সাগর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন বদলীকৃত অফিসিয়াল কাজে থানার বাহিরে থাকায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। উলিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তদন্ত ( ওসি) রুহুল আমীন বাদীর লিখিত অভিযোগ পাওয়ার কথা স্মীকার করে বলেন, বিষয়টি তদন্তনাধীন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikjonokotha.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com