সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ০২:১৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ:
ফুলবাড়ীতে কঠোর লকডাউন কার্যকরে কঠোর প্রশাসন ফুলবাড়ীতে তরুণদের উদ্যোগে বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা চালু কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে ৫শ দুস্থ্য পরিবার পেল ঈদ উপহার লালমনিরহাট পৌরবাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, জনতার মেয়র রেজাউল করিম স্বপন ফুলবাড়ীতে কেটে নেয়া ধান গাছ থেকে ফের ধান উৎপাদন পঞ্চগড়ে নদী ভাঙ্গন রক্ষার দাবিতে স্থানীয়দের মানববন্ধন  জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টা; সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীরা ফুলবাড়ীতে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ সচ্ছলরা পেয়েছেন গৃহহীনদের ঘর, প্রতিবাদে কুড়িগ্রামে মানববন্ধন উলিপুরে ১০ ছাত্রলীগ নেতার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার

উলিপুর পৌর নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী হিসেবে দলের তৃনমূলের পছন্দের প্রার্থী সোহেল রানা

নিউজ ডেস্ক
  • Update Time : সোমবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০২০

আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে কুড়িগ্রামের উলিপুর পৌরসভার বিএনপির সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী হিসেবে নব্বই দশকের তুখোড় ছাত্র নেতা উলিপুর উপজেলা ছাত্রদলের দুইবারের সফল সভাপতি, উপজেলা বিএনপির সাবেক সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সাধারন সম্পাদক দুর্দিনের পরীক্ষিত ও ত্যাগী নেতা আবু জাফর সোহেল রানা কে সব হিসেব নিকেশ উদ্বেগ উৎকণ্ঠা কাটিয়ে বিএনপির সাধারন নেতা কর্মী সমর্থক ও ভোটারদের ভিতর থেকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার দাবী উঠেছে। উলিপুর পৌরসভা এলাকার বিএনপির সমর্থক ও ভোটারদের মতে, এই সাবেক ছাত্রনেতাকে বিএনপির দলীয় মনোনয়ন দিয়ে নির্বাচনের মাঠে নামানো হলে যে কোন প্রতিকুল পরিবেশ পরিস্থিতি মোকাবেলা করার মত সাহসী নেতৃত্বগুণের সক্ষমতা রয়েছে।

উদাহরন হিসেবে অনেকেই বলছেন, গত একমাস যাবত উলিপুর আওয়ামীলীগ সহ অন্যান্য রাজনৈতিক দল তাদের পৌর মেয়র প্রার্থী চূড়ান্ত করতে তৃনমুলের নেতাকর্মীদের ভোটাধিকার প্রয়োগ, মনোনয়ন প্রত্যাশীদের প্রচার প্রচারনা, পোষ্টার ব্যানার সহ গনসংযোগ চোখে পরার মত। অথচ উলিপুর বিএনপি সুসংগঠিত ও সাংগঠনিক ভাবে শক্তিশালী মনে করা হয়। আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপের তফশীল ঘোষিত হওয়ার পরও মেয়র প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত কিংবা সম্ভাব্য প্রার্থী কে, আদৌ বিএনপি মেয়র নির্বাচনে প্রার্থী দেয়ার মত অবস্থায় আছে কি না তার কোন সুস্পষ্ট বক্তব্য দলের পক্ষে আসছে না। দলীয় অভ্যন্তরীন আলোচনায় উলিপুর পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে গোটা বিএনপি সহ ভোটাররাও হতাশায় পতিত হয়েছে বলে জানান, বিএনপির ভোট ব্যাংক এলাকা বলে খ্যাত গুনাইগাছ তেতুলতলা এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা উলিপুর পৌর বিএনপির সাঃসম্পাদক সোলায়মান আলীর বড়ভাই ঐ ওয়ার্ড বিএনপির সাবেক সভাপতি অবঃপুলিশ সদস্য দুলাল মিয়া। পৌরসভা এলাকার রামদাস ধনীরাম, কাশিরখামার এলাকার স্থানীয় বিএনপির নেতা কর্মীরা বলেন, মাঠে প্রার্থী হিসেবে একমাত্র রানা কর্মী সমর্থকদের উজ্জীবিত করতে সক্ষম হয়েছে। । বিএনপি থেকে নির্বাচিত উলিপুর পৌরসভার মেয়র তারিক আবুল আলা চৌধূরী উলিপুর কাচাবাজার, ফলমার্কেট, পৌরআড়ৎ, ড্রেনেজ সংস্কার সহ ফুটপাতের কাজে হাত দেন। তারিক আবুল আলা উলিপুরের মেয়র নির্বাচিত হয়েই পুরো শহর ও বাজারকে আধুনিক ও অবকাঠামো উন্নয়ন করার কাজে হাত দেন। কিন্তু অভ্যন্তরীন ভাবে প্রতিটি কাজে অসহযোগিতা পৌর উন্নয়নের গতি হারায়। অসমাপ্ত কাজ গুলোকে এগিয়ে নিতে রানার বিকল্প আপাতত কেউ নাই বলে সচেতন মহলের ধারনা।

বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠন যুবদল ছাত্রদল এবং স্বেচ্ছাসেবক দলের একাধিক কর্মী নাম না প্রকাশ করার শর্তে বলেন, বোবা হয়ে যাওয়া বিএনপি তৃনমূলের সাধারন কর্মী ও সমর্থকদের এমনকি ভোটারদের মুখে কথা বের করার দুঃসাহসীক কাজটি করেছেন সাবেক ছাত্রনেতা আবু জাফর সোহেল রানা । তিনি শেষমুহুর্তে নিবেদিত সাবেক ছাত্রদল নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে মাঠে প্রচার প্রচারনা ও পোষ্টার ব্যানার ঝুলিয়ে নিমিষেই তার জনপ্রিয়তা ও প্রার্থী হিসেবে সকলের সুনজরে এসেছেন। বিএনপির সিনিয়র নেতৃবৃন্দদের বিশেষ করে কুড়িগ্রাম জেলা সভাপতি তাসভীর উল ইসলাম কে দলের স্বার্থেই রানার পক্ষে সিদ্ধান্ত দেয়া প্রয়োজন।

ছাত্রদল রংপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট এর সাবেক জিএস ও উলিপুর ছাত্রদলের সাবেক ছাত্র নেতা ফিরোজ কবীর বলেন, দলের সিদ্ধান্ত আবু জাফর সোহেল রানার পক্ষে আসার সম্ভাবনা থাকলেও আসন্ন নির্বাচনে বিএনপি মেয়র প্রার্থী মনোনয়ন দিবে কি না সে সিদ্ধান্ত স্পষ্ট নয়। সাবেক ছাত্রদল সভাপতি সোহেল রানার সাংগঠনিক অবদান, দলের জন্য যে ত্যাগ ও কষ্ট যন্ত্রনা এবং হামলা মামলা কে ফেস করেছেন তা এই জেলা বিএনপির রাজনীতিতে আর কেউ করেছেন কিনা সন্দেহ আছে । অথচ তিনি সহ শত শত নেতাকর্মী কে রাজনৈতিক ভাবে বসিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত আছে একটি গ্রুপ। এতে গত ১৭ বছরে বিএনপি সাংগঠনিকভাবে আগের তুলনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাই দলের স্বার্থে এই সংকটে পরীক্ষিত সাবেক ছাত্রদল নেতা কর্মীদের দলের বাহিরে রাখার আর কোন সুযোগ নাই। সবাইকে একসাথে নিয়েই কাজ করতে হবে।

উলিপুর উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ন আহবায়ক খায়রুল কবীর জানান, ১৯ ডিসেম্বর বিএনপি কার্যালয়ে মেয়র প্রার্থী মনোনয়ন বিষয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দল এপর্যন্ত কোন প্রার্থীর নাম চুড়ান্ত করে নি। সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উলিপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি হায়দার আলী মিয়াকে নির্বাচনে অংশগ্রণ করার কথা বলা হলে তিনি তা করবেন না বলে জানান। এখনও দলটি প্রার্থী ঘোষনা দিচ্ছে না আবার দলীয় প্রার্থী হিসেবে আবু জাফর সোহেল রানার নাম তৃনমূল থেকে বলা হলেও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ সে বিষয়ে মন্তব্য করছেন না, নীরব থাকছেন।

সম্প্রতি এক জরিপে ও এলাকার মানুষের কাছে জানা যায়, আবু জাফর সোহেল রানা- তিনি মাদক,সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ মুক্ত, দায়বদ্ধতা নিশ্চিত করে একটি উন্নত ডিজিটাল মডেল পৌরসভা পরিনত করার লক্ষে, তিনি মেয়র পদপ্রার্থী হিসেবে সর্বস্তরের জনগনের সামনে নিজেকে উপস্থাপন করেছেন। তিনি দীর্ঘদিন থেকে এই এলাকায় বিভিন্ন জনপ্রতিনিধির সাথে সাধারন মানুষের স্বার্থে উন্নয়ন মূলক রাজনীতির সাথে জড়িত রয়েছেন এবং অনেক সময় নিজের সামর্থ অনুযায়ী গরিব দুঃখী মেহনতি মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন। তিনি বলেন, রাজনীতিতে ভিন্ন মতাদর্শ থাকতে পারে কিন্তু তিনি মনে করেন এবং বিশ্বাস করেন আমরা যে ,যে দল করি না কেনো আমাদের উদ্দেশ্য জনগনের সেবা করা।

এলাকার তিনি সব সময় মানুষের বিপদে-আপদে নিবেদিত ছিলেন। এলাকার উন্নয়নে সবাইকে সাথে নিয়ে কাজ করেছেন। তিনি আশা করেন আসন্ন উলিপুর পৌরসভার নির্বাচনে দলমত নির্বিশেষে সকলের দোয়া এবং সহযোগিতা নিয়ে এগিয়ে যাবেন।

তিনি আরো বলেন, মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন যদি উনাকে পৌর বাসীর সেবা করার সুযোগ দেন তাহলে তিনি একটি আধুনিক ডিজিটাল মডেল পৌরসভা গড়তে সবাইকে নিয়ে কাজ করবেন।

তিনি দলীয় মনোনয়নে জনগনের ভোটে নির্বাচিত হলে মাদকমুক্ত একটি আধুনিক পরিকল্পিত শিক্ষাবান্ধব ডিজিটাল পৌরসভা জনগণকে উপহার দেবেন।

একটি মডেল পৌর সভা গড়ে তোলার অঙ্গীকারে আগামি পৌরসভার নির্বাচনে কুড়িগ্রামের উলিপুরের মেয়র প্রার্থী পদে দলীয় মনোনয়নে প্রতিধন্ধিতা করতে চান।

অসহায় মানুষের দ্বারপ্রান্তে গিয়ে তাদের কষ্ট এবং বিভিন্ন সামাজিক প্রতিবন্ধকতা গরিব-ধনির তারতম্য খুব কাছ থেকে উপলব্ধি করেছেন। তাই যদি তিনি সুযোগ পান বিশেষ করে সমাজের অসচ্ছল অসহায় গরিব, বিধবা, বয়স্ক এবং প্রতিবন্ধী মানুষের জন্য কাজ করবেন। গরিব-ধনির ভেদাভেদ কে সমাজ থেকে বিলুপ্ত করার লক্ষ্যে বিশেষ ভূমিকা রেখে একটি মানবিক পৌরসভায় রূপান্তরিত করবেন। তিনি এলাকা বাসী ও ওয়ার্ড সদস্যগনের উদ্দেশ্যে বলেন- যদি আমি দলীয় মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হই আমি আমার দেয়া প্রতিশ্রুতি পালন করবই ও অন্যান্য পৌরসভা থেকে পিছিয়ে পড়া উলিপুর পৌরসভা কে এগিয়ে নিয়ে যেতে স্থানীয় সিনিয়র সিটিজেন ও ক্রীড়া সাংস্কৃতিক সামাজিক ব্যাক্তিত্বদের পরামর্শ নিয়েই পৌরসভার উন্নয়নমূলক কাজ করার প্রতিশ্রুতি দেয়া হলো। পৌরসভার কাউন্সিলর বা মেম্বারগন তাদের সাথে সু-সম্পর্ক ও সুসমবন্ঠন এবং তাদের অধিকার নিশ্চিত করে মিলেমেশে একটি ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্রমুক্ত, মাদকমুক্ত আধুনিক মডেল পৌরসভা গড়তে কাধে কাধ মিলিয়ে কাজ করে যাবো।

এলাকাবাসীরা জানান, একজন মেধাবী,ভদ্র ও নম্র মানুষ দীর্ঘ দিন থেকে পৌর এলাকা সহ উপজেলার অসহায় মানুষদের সহযোগীতা করে অসহায় ও গরীব মানুষের খুব আপনজন হয়ে উঠেছেন। এছাড়া বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও রাজনৈতিক সংগঠনেও রয়েছে তার প্রচুর অবদান। উলিপুরের স্থানীয় জনগন আবু জাফর সোহেল রানা কে নিয়ে আসন্ন পৌরসভা নির্বাচন কেন্দ্রীক আলোচনায় পৌরবাসীর মতামত, ” আমরা চাই এরকম একজন শিক্ষিত সাহসী, সুন্দর, গরীব দুখী ও মেহনতি মানুষের কাছের ভালোবাসার আবু জাফর সোহেল রানা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikjonokotha.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com