সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ:
ফুলবাড়ীতে কঠোর লকডাউন কার্যকরে কঠোর প্রশাসন ফুলবাড়ীতে তরুণদের উদ্যোগে বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা চালু কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে ৫শ দুস্থ্য পরিবার পেল ঈদ উপহার লালমনিরহাট পৌরবাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, জনতার মেয়র রেজাউল করিম স্বপন ফুলবাড়ীতে কেটে নেয়া ধান গাছ থেকে ফের ধান উৎপাদন পঞ্চগড়ে নদী ভাঙ্গন রক্ষার দাবিতে স্থানীয়দের মানববন্ধন  জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টা; সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগীরা ফুলবাড়ীতে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ সচ্ছলরা পেয়েছেন গৃহহীনদের ঘর, প্রতিবাদে কুড়িগ্রামে মানববন্ধন উলিপুরে ১০ ছাত্রলীগ নেতার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার

উলিপুরে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর পক্ষের নির্বাচনী গনসংযোগে বাধা দেয়ার চেষ্টা

স্টাফ রিপোর্টার
  • Update Time : রবিবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০২১

কুড়িগ্রামের উলিপুর পৌর নির্বাচনে বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থীর পক্ষে বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির রংপুর বিভাগীয় সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল খালেক এর গনসংযোগে আকষ্মিক হট্টগোল ও বাধা দেয়ার ঘটনা ঘটেছে।পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে ছাত্রদলের সাবেক নেতৃবৃন্দদের সৌহার্দ্যপূর্ন ও ধৈর্য্যশীল আচরনের তড়িৎ পদক্ষেপে উত্তপ্ত পরিস্থিতি দ্রুত শান্ত হয়ে আসে। গনসংযোগের শুরুতে নৌকা মার্কা প্রার্থীর লিফলেট হাতে কয়েকজন কর্মী বিএনপির প্রচারনার মধ্যে ঢুকে পরলে বাগবিতণ্ডা ও হৈ হট্টগোলে নির্বাচনী প্রচারনা বাধার সম্মুখীন হয়।

এ অনাকাংখিত ঘটনার পর উলিপুর উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আবু জাফর সোহেল রানার তত্বাবধানে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও বিএনপি কেন্দ্রীয় নেতা আঃ খালেকের নেতৃত্বে পুর্বনির্ধারিত নির্বাচনী গনসংযোগ ও প্রচারনা পুনরায় শুরু হয় । এ ঘটনায় কোন পক্ষই বিপরীত পক্ষের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক কোন অভিযোগ করে নাই বলে জানা গেছে।

জানা যায়, শনিবার ( ২৩ জানুয়ারী) বিকাল সাড়ে চারটায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বিভাগীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল খালেক উলিপুর পৌর মেয়র প্রার্থী হায়দার আলীর নির্বাচনী প্রচারনা ও গনসংযোগের উদ্দেশ্যে উলিপুর মসজিদুল হুদার মোড়ে নেতাকর্মীদের নিয়ে অবস্থান করেন । গনসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ করার শুরুতেই নৌকাপ্রার্থীর পক্ষের কর্মী ও সমর্থকরা পিছনের সাড়িতে থাকা ধানের শীষ মার্কার নেতাকর্মীদের ঘিরে ধরে এবং” জয়বাংলা স্লোগান সহ ৩০ তারিখের পর ধানের শীষ তার আগে ভোট চাইতে না আসিস ” এমন স্লোগান দিয়ে যুবদল এক নেতার বিরুদ্ধে নৌকা মার্কার লিফলেট ছিরে ফেলার অভিযোগ নিয়ে এসে তার উপড় চড়াও হয়। এসময় দুই পক্ষের একটি অংশ বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পরে। ঘটনার আকস্মিকতায় পথচারী ও আশেপাশের দোকানদারদের মধ্যে ভীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়। মুহুর্তেই দু পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পরলে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুল খালেকের সাথে থাকা উলিপুরের সাবেক ছাত্রদল নেতৃবৃন্দদের কয়েকজন উভয়পক্ষ কে শান্ত করতে সমর্থ হয়। এরপরেও ৫/৬ জন উত্তেজিত কর্মী বিএনপির প্রচারনায় বাধা দেয়ার চেষ্ঠা করে বলে জানা যায়।

আওয়ামীলীগের প্রার্থীর পক্ষের বিচ্ছিন্ন উত্তেজিত কর্মীরা অভিযোগ করে, তারা যুবদলের ঐ নেতাকে নৌকামার্কার লিফলেট হাতে দিয়ে নৌকার ভোট চাইলে তিনি উত্তেজিত হয়ে ওঠেন এবং লিফলেট ছুরে দেন। বিএনপির গনসংযোগে অংশ নেয়া যুবদল নেতার হাতে নৌকা মার্কার লিফলেট ধরিয়ে দেয়ার বিষয়ে উত্তেজিত হওয়ার কোন ঘটনা ঘটেনি বরং ইচ্ছাকৃত ভাবে গায়ে পরে ঝগড়া বাঁধানোর পাল্টা অভিযোগ করেন যুবদলের ঐ নেতা।

উপস্থিত এক মিডিয়াকর্মী জানান, সামান্য তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে নির্বাচন উত্তাপে বড় ধরনের বিশৃংখলা ঘটার আশংকা কে ধৈর্য্যের সাথে সৌহার্দপূর্ণ আচরনে মোকাবেলা করেছেন সাবেক এইসকল ছাত্রনেতারা। পাশাপাশি ঘটনাস্থলে থানা পুলিশের তাৎক্ষণিক উপস্থিতি উত্তপ্ত পরিস্থিতিকে দ্রুত প্রশমিত করে।

বিএনপি নেতা আব্দুল খালেক কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ছাত্রদলের সাবেক নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে লিফলেট বিতরন ও গনসংযোগ কার্যক্রম অব্যাহত রাখেন। তিনি উলিপুর মসজিদুল হুদার সামনের রাস্তার দুই পাশের দোকানে, পথচারী এবং মধ্যবাজারের কাচামাল খুচরা ও পাইকারী বাজার, মাছবাজার সহ মার্কেট ও বিপণি বিতানগুলোতে উপস্থিত সকল ভোটারদের কাছে স্বন্ধা পর্যন্ত লিফলেট বিতরণ করে প্রচারনা চালান। এসময় তিনি আসন্ন ৩০ শে জানুয়ারী উলিপুর পৌর নির্বাচনে ভোটারদের কে ধানের শীষে ভোট দেয়ার আহবান জানান। সাবেক ছাত্রদল নেতাকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উলিপুর উপজেলা ছাত্রদলের দুইবারের সাবেক সভাপতি সোহেল রানা, সাবেক ছাত্রদল নেতা এরশাদুল হক বকুল রপই এর সাবেক জিএস ফিরোজ কবীর, রংপুর কারমাইকেল কলেজ ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ফেরদৌস সোহেল, ,উলিপুর পৌর বিএনপির সভাপতি নুর মোহাম্মদ, উপজেলা বিএনপির সহ- সভাপতি নুরেচ্ছাবা স্টার, উপজেলা যুবদল সভাপতি এসএম হাবীব নয়ন, স্বেচ্ছাসেবকদল কুড়িগ্রাম জেলা শাখার সহ-সভাপতি এস এম সবুজ, সাবেক ছাত্রদল নেতা ছানা সরদার, লাবু আমীন, বিন্টু সরদার , মাঈনুল হাসান, রাজু, মিলন।

বিএনপির মেয়র প্রার্থী উলিপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান, সাবেক পৌর মেয়র ও উলিপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি হায়দার আলী মিয়া নির্ধারিত গনসংযোগে উপস্থিত না থাকায় ছাত্রদলের সাবেক নেতাকর্মীদের মধ্যে অসন্তোষ লক্ষ্য করা গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির একাধিক নেতা ও কর্মীরা বলেন, গনসংযোগে আওয়ামীলীগের কর্মীদের বাধাবিপত্তি ও হুমকি উপেক্ষা করে ছাত্রদলের সাবেক নেতাকর্মীরা যদি মাঠে থেকে কাজ করার সাহসী ভূমিকা রাখতে পারেন তাহলে দলের প্রার্থী হিসেবে তার উপস্থিতি গুরুত্বপূর্ণ ছিলো। কারন হিসেবে বলেন, সাবেক ছাত্রদল নেতাকর্মীদের চেতনাদীপ্ত দুঃসাহসীক পথ চলার সাথী হওয়ার সুযোগ সবসময় আসে না। উল্লেখ্য, বিএনপির প্রার্থী হায়দার আলীসহ বিএনপির নেতাকর্মীদের ভোট ময়দানে সরব উপস্থিতি নিরুৎসাহিত করতে বিভিন্ন প্রকার গুজব ছরানোর অভিযোগ আসছে। নির্বাচনী প্রচারনার অংশ হিসেবে গতকালকেই ছাত্রদলের সাবেক সকল নেতাকর্মী সহ বিএনপির পরিচিত মুখগুলোর মধ্যে ত্যাগী, নির্যাতিত ও পরীক্ষিত দের দেখা গেছে।

অপরদিকে উত্তপ্ত পরিস্থিতিতেই আওয়ামীলীগের মেয়র পদ প্রার্থী নৌকা মার্কার আলহাজ্ব মামুন সরকার মিঠুর পক্ষে উলিপুরে একটি ঝটিকা মিছিল বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ করে। বিকেলের ঐ ঘটনার পর থেকে উলিপুর পৌর এলাকার বিভিন্ন গুরুত্বপুর্ন পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। পাশাপাশি পুলিশের টহল অব্যাহত রয়েছে।

পুলিশ সূত্র গুলো বলছে, আসন্ন উলিপুর পৌর নির্বাচনকে সুষ্ঠ ও শান্তিপুর্ন করতে এবং যে কোন বিশৃংখল পরিবেশের মোকাবেলায়, জনগনের নিরাপত্তা রক্ষায় পুলিশ বাহিনীর সকল প্রস্তুতি রয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikjonokotha.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com