শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০২:৫৬ পূর্বাহ্ন

কুড়িগ্রামে শিক্ষার্থী পেটানো সেই মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি :
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে কওমি মাদ্রাসার দ্বিতীয় জামায়াতের সাত বছরের এক শিক্ষার্থীকে অমানুষিক নির্যাতন চালানোর জন্য আলোচিত সেই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, অভিযুক্ত শিক্ষক আবু সাইদকে বুধবার গভির রাতে  উপজেলা সদরের পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের পিছনের সড়ক হতে আটক করা হয়। পরে পুলিশ বাদী হয়ে ২০১৩ সালে শিশু আইনের ৭০ ধারায় একটি  মামলা দিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে তাকে জেল হাজতে পাঠায়। গ্রেপ্তারকৃত শিক্ষক আবু সাইদ পাথরডুবি ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা হবিবর রহমানের ছেলে।

নির্যাতনের শিকার শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোন প্রকার অভিযোগ না থাকলেও শিশু আইনে যে কেউ বাদী হতে পারে। ফলে পুলিশ বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে বলে জানায় পুলিশ।

ভূরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্য (ওসি) আলমগীর হোসেন জানান, কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার পাথরডুবি ঢেবঢেবি বাজার কিসমত-কুলসুম ক্বওমি নূরানী ও হাফেজি মাদ্রাসার লাম নামের এক শিশু শিক্ষাথর্ীকে অমানুষিক মারপিটের অভিযোগ উঠে। এ বিষয়ে একটি ভিডিও তিনদিন আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে পুলিশের নজরে আসে। পরে পুলিশ অভিযুক্ত শিক্ষককে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চালায়।

উল্লেখ্য, নিধার্রিত বাড়ির কাজ না লিখে অন্য লেখা লিখে জমা দেয়ার অপরাধে গত ১৯ এপ্রিল ওই শিক্ষক কর্তৃক মাদ্রাসার দ্বিতীয় জামায়াতে সাত বছরের লাম ওরফে লাল নামের এক শিক্ষার্থীকে বেদম মারপিটের একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। ভিডিও দেখে ওই শিক্ষার্থীর বাবা পাথরডুবী বাজারের বাসিন্দা এবং ঢেবঢেবি বাজারের ব্যবসায়ী মোতালেব হোসেন জানতে পারে তার সন্তানকে এরকম অমানুষিক নির্যাতন সহ্য করতে হয় প্রতিনিয়ত। ওইদিন বিকালে (১৯ এপ্রিল)  মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ মাদ্রাসায় একটি  সালিশি বৈঠকের আয়োজন করে অভিযুক্ত শিক্ষককে বহিস্কার করে।

 

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikjonokotha.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com