রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০১:৪৩ পূর্বাহ্ন

লকডাউন তুলে নিলে অভিযুক্ত সকলকে নিয়ে জেলে চলে যাবো: বাবুনগরী

জনকথা ডেস্ক
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১

রমজানে আলেম-ওলামাদের ওপর জুলুম-নির্যাতন বন্ধ করার অনুরোধ জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী। বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে অনুরোধ জানিয়েছেন হেফাজত আমির।

বাবুনগরী বলেন, আপনারা লকডাউন তুলে নিন। এর বিনিময়ে আমি অভিযুক্তদের নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে জেলে চলে যাবো; একজন পুলিশও পাঠাতে হবে না।

হেফাজত আমির বলেন, দেশের নিম্ন আয়ের গরিব মানুষকে আর হয়রানি ও কষ্ট না দিয়ে আমার কাছে তালিকাটা পাঠান। আমি অভিযুক্ত সকলকে নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে জেলে চলে যাবো। লকডাউনের অজুহাতে জোর-জবরদস্তি করে যেসব মাদ্রাসা ও হেফজখানা বন্ধ করে কোরআন-হাদিসের চর্চা বন্ধ করে দিয়েছেন, সেগুলো খুলে দিন। যাতে কোরআন-হাদিসের ব্যাপক চর্চার বরকতে দেশের ওপর আল্লাহর রহমত নাজিল হয়।

হেফাজত আমিরের ব্যক্তিগত সহকারী ইন্আমুল হাসান ফারুকী স্বাক্ষরিত ওই বিবৃতিতে বাবুনগরী বলেন, এই রমজান মাসে রিমান্ডে নেওয়া আলেম-ওলামাদের বিধর্মী এবং অবিশ্বাসীদের দিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করাবেন না। তারা এসব হজরতের সঙ্গে খুবই নিষ্ঠুর ও অপমানজনক আচরণ করছে। মহান আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীন এসব বরদাশত করবেন না।

হেফাজত আমির বলেছেন, রাসুল (সা.) বলেছেন, মাহে রমজান হলো সাহায্য সহানুভূতির মাস। বাকি ১১ মাসের তুলনায় রমজান মাসে সব ধরনের ইবাদত-বন্দেগির ফজিলত অনেক বেশি। অথচ এই মাসেই বাংলাদেশে জুলুম, গ্রেফতার, নির্যাতন চালানো হচ্ছে শত শত হেফাজত নেতাকর্মী, আলেম-ওলামা, ছাত্র ও তৌহিদি জনতার ওপর।

গণপ্রতিরোধ ও প্রতিবাদ ছাড়া সহজে আলেম-ওলামাদের গ্রেফতারের জন্য লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়িয়ে সরকার সমগ্র দেশবাসীকে কষ্ট দিচ্ছে অভিযোগ এনে জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, দেশের নিম্ন আয়ের গরিব মানুষকে আর হয়রানি ও কষ্ট না দিয়ে আমার কাছে তালিকাটা পাঠান। আমি অভিযুক্ত সকলকে নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে জেলে চলে যাবো; একজন পুলিশও পাঠাতে হবে না। এর বিনিময়ে আপনারা লকডাউন তুলে নিন। লকডাউনের অজুহাতে জোর, জবরদস্তি করে যেসব মাদরাসা ও হেফজখানা বন্ধ করে কোরআন-হাদিসের চর্চা বন্ধ করে দিয়েছেন, সেগুলো খুলে দিন। যাতে কোরআন-হাদিসের ব্যাপক চর্চার বরকতে দেশের ওপর আল্লাহর রহমত নাজিল হয়।

দেশবাসীর উদ্দেশে তিনি বলেন, হেফাজতে ইসলামের আন্দোলন সব সময়ই শান্তিপূর্ণ ছিল এবং ভবিষ্যতেও তা-ই থাকবে। বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ করা দেশবাসীর সাংবিধানিক অধিকার। কোনও সরকারই জনগণের এই মৌলিক অধিকার কেড়ে নিতে পারে না। কথিত ‘তাণ্ডব ও ভাঙচুর’-এর অভিযোগে সারাদেশে গত আট বছরে যত মামলা হয়েছে, তার সবই অবৈধ, ষড়যন্ত্রমূলক ও মিথ্যা। বিনা শর্তে ষড়যন্ত্রমূলক এসব মিথ্যা মামলা বাতিল করুন। কারাবন্দি সব আলেম-ওলামাকে মুক্তি দিন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikjonokotha.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com