রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০৪:৪৪ অপরাহ্ন

দখলমুক্ত হচ্ছে চাকিরপশার নদী

কল্লোল রায়:
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৪ মে, ২০২১

প্রায় ৩ বছরের দীর্ঘ আন্দোলনের পর কুড়িগ্রামের রাজারহাটের চাকিরপশার নদীর খনন কাজ(প্রথম দফা) শুরু হয়েছে আজ। জেলার রাজারহাট উপজেলার বোতলার পাড় বটতলা বাজার এলাকায় নদীর উজানমুখে মঙ্গলবার(৪ঠা মে) নদীর খননকাজ শুরু হয়।

এলাকাবাসীদের সাথে নিয়ে কয়েকদফা মানববন্ধন,বিক্ষোভ সমাবেশ, গোল নৌকা বৈঠক, প্রশাসনের কাছে স্বারকলিপি প্রদানের ফসল ফল হিসেবে খননের খবরে স্থানীয় বাসীন্দাদের মাঝে স্বস্তি বিরাজ করছে।

বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের তত্বাবধানে ১৬ লাখ টাকা ব্যায়ে ২ কিলোমিটার এই নদী খনন প্রকল্পের দ্বায়িত্বে রয়েছে রাফি বিল্ডার্স ও আনসারী কনষ্ট্রাকশন। রাজারহাট ইউনিয়নের ইটাকুড়ির দোলা সংলগ্ন আঙ্গাধোয়ার ব্রিজ থেকে দক্ষিণ দিকে একই ইউনিয়নের নলাডাঙার ব্রিজ পর্যন্ত সি এস রেকর্ড অনুযায়ী খনন করা হবে বলে জানায় খনন কাজের সাথে সংশ্লিষ্টরা।

চাকিরপশার নদী সুরক্ষা কমিটির আহবায়ক খন্দকার আরিফ জানান,দীর্ঘদিন ধরে দখল হওয়ার এই নদী আমাদের আন্দোলনের ফলে খনন করা সম্ভব হচ্ছে। প্রথমে জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনে স্বারকলিপি দেওয়া হয়,তারপর জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের কাছেও স্বারকলিপি প্রদান করা হয়। নদীর উৎসমুখে ইটাকুড়ির দোলায় প্রায় ২৫ হাজার একর জমি আছে। যেখানে বছরে ১বার ধান আবাদ হতো। ১ মৌসুমে ১২ লক্ষ মণ ধান হয়। নদীর স্বাভাবিক গতিপ্রবাহের ফলে পানি নিষ্কাশন হয়ে এখন প্রায় দ্বিগুণ পরিমাণ ধান উৎপাদন সম্ভব। প্রায় ১২২ জন দখলদারদের বিরুদ্ধে এই আন্দোলনটি বিভিন্ন প্রতিকুলতার মধ্য দিয়ে সফল হয়েছে বলেও জানান তিনি।

চাকিরপশার নদী সুরক্ষা কমিটির সমন্ময়ক অধ্যাপক তুহিন ওয়াদুদ বলেন, এই নদী খনন সম্পন্ন হলে প্রায় ২৫ হাজার একর ধানের জমির জলাবদ্ধতা দূর হবে। ফলে কৃষি কাজে এর সুফল আসবে। নদীতে সারাবছর পানি থাকলে মাছ থাকবে।ফলে এ অঞ্চলের কৃষি, জীববৈচিত্র্য সর্বপরি পরিবেশের উন্নয়ন ঘটবে। উৎসমুখের খননের ধারাবাহিকতা বজায় থেকে মাঝপথে দখল হওয়া নদীর জমি উদ্ধার হয়ে নদীর স্বাভাবিক গতিপ্রবাহ বজায় থাকবে বলেও আশাবাদী তিনি।

বোতলার পাড় গ্রামের বাসিন্দা মতিয়ার রহমান বলেন, ‘দেবিচরণ,পুটিকাটা,দিনা,নাটুয়া মহল,নাফাডাঙ্গা সহ ১০টি মৌজার প্রায় ৫০ হাজার বাসিন্দা সরাসরি উপকৃত হবে। সর্বশেষ প্রায় ৩০ বছর আগে এই নদী খনন করা হলেও কালের বিবর্তনে দখলদারকের কুনজরে পরে এই নদী অদৃশ্য হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

মঙ্গলবার(৪ঠা মে) বিকেলে নদীর উৎসমুখের খননকাজের উদ্ধোধনের সময় উপস্থিত ছিলেন, রাজারহাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদ ইকবাল সোহরাওয়ার্দী, উপজেলা পরিষদের ভাইস
চেয়ারম্যান আশিকুর রহমান মন্ডল, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী, চাকিরপশার নদী সুরক্ষা কমিটির সমন্ময়ক অধ্যাপক তুহিন ওয়াদুদ,চাকিরপশার নদী সুরক্ষা কমিটির আহবায়ক খন্দকার আরিফ, চাকিরপশার নদী সুরক্ষা কমিটির নেতাকর্মীরা সহ স্থানীয় বাসীন্দারা।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikjonokotha.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com