শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০৩:৪৪ পূর্বাহ্ন

১০ বছরে রেডিও চিলমারী  

কুুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:
  • Update Time : বুধবার, ২ জুন, ২০২১

দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলা কুড়িগ্রামের ব্রহ্মপুত্র নদের পাড় ঘেষা উপজেলা চিলমারীতে অবস্থিত কমিউনিটি রেডিও চিলমারীর ৯ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ। ২০১১ সালের ৩ নভেম্বর পরিক্ষামূলক সম্প্রচার শুরু এবং ২০১২ সালের ২ জুন আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে রেডিও চিলমারী। সূচনার ৯ বছর পেরিয়ে ১০ বছরে আরডিআরএস বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত কুড়িগ্রাম জনপদের একমাত্র নিজস্ব গণমাধ্যম রেডিও চিলমারী ৯৯.২ এফএম।

রেডিও চিলমারীর বর্তমান সম্প্রচারভুক্ত এলাকা কুড়িগ্রাম জেলা সদরসহ চিলমারী, রৌমারী, রাজিবপুর, উলিপুর, রাজারহাট,  নাগেশ্বরী, ফুলবাড়ী, গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ ও সাদুল্যাপুর উপজেলা এবং রংপুর জেলার পীরগাছা, কাউনিয়া ও মিঠাপুকুর উপজেলার অংশ বিশেষ (আকাশ পথে ২৫ কিলোমিটার)। এবং তাদের শ্রোতা সংখ্যা ৭ লাখ এর বেশী। রেডিও চিলমারী বর্তমানে দৈনিক  বিকাল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মোট ৫ ঘন্টা অনুষ্ঠান সম্প্রচার করছে। বিভিন্ন আঙ্গিকে অনুষ্ঠান নির্মাণের মাধ্যমে কমিউনিটির মানুষকে উন্নয়ন বার্তা দেয়াই অনুষ্ঠানগুলোর মূল লক্ষ্য। অনুষ্ঠান পরিকল্পনার ক্ষেত্রে প্রাকৃতিক দূর্যোগ, জলবায়ু পরিবর্তন, কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, তথ্য ও বিনোদন বিষয়গুলোর ওপর বেশি গুরুত্ব দেয়া হয় ।

৯৯.২ এফএম ব্যাণ্ডে অনুষ্ঠান প্রচার করে রেডিও চিলমারী। তাদের স্লোগান হচ্ছে,’শোনো বাহে, জাগো বাহে………।’ কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলার রমনা মিস্ত্রীপাড়া গ্রামে রেডিও চিলমারীর স্টেশনটির অবস্থান।

রেডিও চিলমারী’র সাথে শ্রোতাদের রয়েছে  নিবিড় সম্পর্ক। প্রতিদিন হাজার হাজার শ্রোতা যোগ দেন রেডিও চিলমারী’র অফিসিয়াল ফ্যান পেইজে তাদের মন্তব্যের মাধ্যমে।

রেডিও চিলমারী’র সম্প্রচারভুক্ত এলাকায় দূর্যোগ মোকাবেলায় লক্ষণীয়  পরিবর্তন এসেছে। শ্রোতারা, বিশেষ করে নদী তীরবর্তী যারা প্রতিবছর বন্যা আক্রান্ত হন তারা এখন অনেক সচেতন। এসব শ্রোতা এখন তিন স্তরে সফলতার সাথে দূর্যোগকে প্রতিহত করেন। দূর্যোগ আসার আগেই (বন্যা) সব ধরণের প্রস্তুতি গ্রহণ করে থাকেন। আলগা চুলা তৈরি,শুকনা লাকড়ি সংগ্রহ,দলিলপত্র সংরক্ষন ইত্যাদি এখন করছেন নিপুন ভাবে। যার ফলে প্রতি বছর ওইসব মানুষ বন্যা আক্রান্ত হলেও ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে তুলনামুলক ভাবে  কম।

কমিউনিটি রেডিও হচ্ছে একটি বিশেষ অঞ্চল ভিত্তিক উন্নয়ন সম্প্রচার মাধ্যম। কমিউনিটি রেডিও এমন একটি মাধ্যম যা তৃণমূল পর্যায়ে মানুষের আত্মপ্রকাশ ও বিকাশের ক্ষেত্র প্রস্তুত করে। এটি প্রান্তিক মানুষের মতামত প্রকাশের বাহন ও তাদের যোগাযোগের অন্যতম প্রধান মাধ্যম হিসাবে কাজ করে। কমিউনিটি রেডিও একটি কমিউনিটির নিজস্ব সম্পদ।

আরডিআরএস বাংলাদেশ এর নির্বাহী পরিচালক তপন কুমার কর্মকার বলেন,দুর্গম যাত্রা পথে রেডিও চিলমারী ৯৯.২ এফএম এর প্রত্যয়দ্বীপ্ত পথচলার মূল সহায় শক্তি আপনারা-প্রিয় শ্রোতাগণ আমাদের বিনম্র অভিবাদন গ্রহণ করুন। দুযোর্গের অন্ধকার পেরিয়ে আমরা শুভবোধে স্নাত হবো। স্নিগ্ধ সূর্যকিরণে ঝলমলে হয়ে উঠবে প্রতিটি প্রাণ।

রেডিও চিলমারীর স্টেশন ইনচার্জ বশির আহমেদ বলেন, কখনো স্বজনের মৃত্যুশোক বুকে নিয়ে সম্প্রচার চালাতে হয়। চোখে বেদনার জল বইলেও মুখে থাকে হাসি। কারন; শ্রোতাকে খুশি করাই আমাদের কাজ। আপনি ঈদে কিংবা কোন পার্বণে যখন ঘুরতে বেরুচ্ছেন পরিবার পরিজন নিয়ে, তখন আপনাকে বিনোদিত করতেই আমরা ব্যস্ত। প্রকৃত অর্থে আমরা শুধু চাকরিই করিনা-কর্তব্য পালন করি।

রেডিও চিলমারীর দশ বছরে যাত্রায় প্রাণভোমরা লক্ষ লক্ষ শ্রোতা, তাঁদের জন্য আমরা নিবেদিত থাকতে চাই সর্বক্ষণ।

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikjonokotha.com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com